1. mti.robin8@gmail.com : Touhidul islam Robin : Touhidul islam Robin
  2. newsnakshibarta24@gmail.com : Mozammel Alam : Mozammel Alam
  3. nakshibartanews24@gmail.com : nakshibarta24 :
বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৬:৪১ অপরাহ্ন
১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আদর্শকে ধারণ ও লালন করে মানবসেবায় আমৃত্যু কাজ করে যাবো : মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সিআইপি।

  • প্রকাশকালঃ রবিবার, ১৯ জুলাই, ২০২০
  • ৫৩১ জন পড়েছেন
মোহাম্মদ মনির উদ্দিন মান্না : 
বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশেই হানা দিয়েছে এ ভাইরাস। এর সংক্রমণ থামাতে প্রায় সব দেশই কোনো না কোনোভাবে লকডাউনের পথে হাঁটলেও পরিকল্পিতভাবে এর তাণ্ডব থামাতে পেরেছে খুব কম দেশই। বাংলাদেশে এ ভাইরাস শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। ২৬ মার্চ থেকে দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে লকডাউন পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয়। ফলে কর্মহীন হয়ে পড়ে লাখ লাখ মানুষ। এরইমধ্যে হাজার হাজার মানুষের চাকরি চলে গেছে।মধ্য ও নিম্নবিত্তের ঘরে ঘরে চলছে আর্থিক সংকট।
ঠিক এমন সময় দেশের বহু বিত্তবান হাত গুটিয়ে বসে থাকলেও কিছু মানুষ তাদের সহযোগিতার হাত খোলা রেখেছেন ঠিকই। তাদের উদ্দেশ্য আত্মপ্রচার নয়। তারা মানবতার সেবায় নীরবে নিভৃতে সাধারণ মানুষদের সহযোগিতা করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। তিনি  মানবতার কবি বলে খ্যাত ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি।
তিন মাস আগেই তিনি বিশ্ব পরিস্থিতির আলোকে বুঝতে পেরেছিলেন, কী ঘটতে যাচ্ছে প্রিয় বাংলাদেশে। তাই তো নিজের ফেসবুক লাইভে এসে  মানবতার সেবায় সম্মিলিতভাবে কাজ করার জন্য যার যার অবস্থান থেকে সবাইকে এগিয়ে আসার ডাক দিয়েছিলেন মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভে এসে ও  একটি পোস্ট দিয়েই তিনি তার দায়িত্ব শেষ করেননি। করোনা সংক্রমণের শুরু থেকেই প্রতিদিন নতুন উদ্যোগ আর নতুন চিন্তা ভাবনায় সরকারের পাশাপাশি ব্যক্তিগত উদ্যোগে মীরসরাই সহ দেশে- বিদেশে  জনগণের পাশে ছিলেন এই  মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি। মহামারি করোনা পরিস্থিতির শুরুতে মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিতে মীরসরাই উপজেলার  ১৬ টি ইউনিয়ন ও দুইটি পৌরসভায় মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পির ব্যক্তিগত তহবিল থেকে মীরসরাই বাসীকে  ৫০ লাখ টাকা দেন। পাশাপাশি মীরসরাই, চট্টগ্রাম, দেশ- বিদেশে ৩০-৪০ হাজার পরিবারের মধ্যে নিজ কর্মী বাহিনী দিয়ে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।
এরপর তিনি আরব আমিরাতে কর্মহীন প্রবাসীর পাশে দাঁড়াছেন। তিনি নিজের হাতে নগদ অর্থ সহ খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন। এবং তার প্রতিনিধি দলও  কর্মহীন প্রবাসীদের কাছে নগদ অর্থ সহ ইফতারি, খাদ্যসামগ্রী দুবাই, আবুধাবি,আল আইন, শারজাহ, আজমান তুলে দেন। তার পর কিন্তু বাংলাদেশে করোনার প্রকোপ বাড়তে থাকে। এতে দিশেহারা হয়ে পড়েন মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি।তার নিজ এলাকায় মীরসরতে  মানুষ যাতে না খেয়ে না থাকে সেই জন্য গঠন করেন মানব সেবা প্রতিষ্ঠান খান কল্যাণ ট্রাষ্ট। সেখানে দ্বিতীয় দফায় হতদরিদ্রদের খাদ্য সহায়তা, স্বাস্থ্য সুরক্ষার সরঞ্জাম বাবদ দেন আরও ২০ লাখ টাকা এবং বন্দর-ইপিজেড-পতেঙ্গা করোনা হাসপাতা সহ  বিভিন্ন হাসপাতালে  টাকা অনুদান দেন।
খান কল্যাণ ট্রাষ্টের  পক্ষ থেকে গঠন করেন ১৫১ জন  টিম। এরপর  মীরসরাই বাসীর প্রয়োজনে শেষ বিদায়ের বন্ধুর এ্যাম্বুলেন্স ক্রয়ের জন্য সহযোগীতা করেন ৫ লক্ষ টাকা, গরীব অসহায় চিকিৎসা বাবদ দেন ১০ লক্ষ টাকা।শুধু নিজ এলাকায় নয়, করোনায় মৃত্যুবরণকারী সম্মুখ যোদ্ধাদের পরিবারের প্রতিও সহায়তা নিয়ে এগিয়ে যান মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি।
মীরসরাই  উপজেলার এমন কোনাে দরিদ্র পরিবার নেই যে পরিবারে তিনি খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেননি । তিনি শুরুতে ঘােষণা দিয়েছিলেন তার এলাকার কাউকে না খেয়ে অভুক্ত থাকতে হবে না । তিনি তার কথা শতভাগ রেখেছেন ।মীরসরাই উপজেলায় ইমাম – মুয়াজ্জিনসহ দলমত শ্রেণি পেশা নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষ পর্যাপ্ত ত্রাণ সমাগ্রী পেয়েছেন।
ঈদুল ফিতরের সময় ইমাম, হাফেজ, মোয়াজ্জি,বিভিন্ন মাদরাসা কে  ঈদ শুভেচ্ছা বাবদ ১৮  লাখ টাকার উপহার সামগ্রী ও নগদ অর্থ দেন  মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি।
মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি আরব আমিরাতে বসে মীরসরাই সহ বাংলাদেশ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি,পুলিশ প্রশাসন, সাংবাদিকের  সাথে  আলাপ করে তাদের ত্রাণ বিতরণ ও মানুষকে সচেতন করতে নানা দিক নির্দেশনা দেন।তিনি শুধু  নির্দেশনায় সীমাবদ্ধ ছিলেন না মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি । তিনি সম্মুখ যোদ্ধার মতো জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিজেই নেমে পড়েন সংযুক্ত আরব আমিরাতে কর্মহীন প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাশে। এ পর্যন্ত দেশে- বিদেশে ফেসবুক লাইভে এসে  মানুষকে সচেতন করে যাচ্ছেন তিনি।
প্রায় সময় নিজের ফেসবুক পেজে লাইভে এসে নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষকে করোনা রোধে নানা পরামর্শ দিচ্ছেন। আবার নেতা-কর্মীদের মৃত্যু শোকে হাহাকারও করছেন। একই সঙ্গে স্বাস্থ্য বিভাগের ও জনপ্রতিনিধিদের  নানা অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব প্রতিবাদ জানাচ্ছেন  মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি। করোনাকালে মানবতার সেবায় নিজস্ব উদ্যোগে এমন দান-অনুদানের বিষয়ে মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি বলেন, করোনার শুরু থেকেই যা কিছু করেছি সবই রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনানুযায়ী করেছি। নেত্রীর নির্দেশ ছিল, অসহায় সাধারণ মানুষের পাশে থাকার। তাদের পাশেই আছি। সহযোগিতা করে যাচ্ছি।
তিনি বলেন, এই যে দানশীলতা। এটা আমার রক্তে মিশে আছে। এটা আমি উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত। আমার বাবা প্রয়াত  দানবীর  হাজী মোহাম্মদ শাহ আলম ও আমার মা সুখিনা বেগম কে দেখেছি, আমার বাবা  সব সময় সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করতেন, তাদের নানাভাবে সহযোগিতা করতেন। এবং আমার মা ও। আমার বাবা প্রয়াত হাজী মোহাম্মদ  শাহ আলম কে আমার প্রিয় মীরসরাই বাসী  দানবীরের উপাধিতে ভূষিত করেছেন। এখনও প্রিয় মীরসরাই মানুষ তাকে দানবীর হাজী শাহ আলম বলে স্মরণ করেন। আমি আমার বাবার সেই ধারা বহমান রেখেছি। আমৃত্যু রাখবো।  সবার কাছে দোয়া চেয়ে মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আ পি  বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমৃত্যু দেশ ও মানুষের কল্যাণে নিবেদিত প্রাণ হিসেবে কাজ করে গেছেন । তার সুযােগ্য কন্যা মাদার অব হিউম্যানিটি ‘ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও মহান সেই পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে দেশ ও জাতির ভাগ্যোন্নয়নে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন । তার সৈনিক হিসেবে আমিও সেই আদর্শকে ধারণ ও লালন করে মানবসেবায় আমৃত্যু কাজ করে যাবাে ।
করোনা ভাইরাসসহ যে কোনো দুর্যোগ ও বিপদে আমি আমার সাধ্যমতো মীরসরাই উপজেলায়  সাধারণ দরিদ্র মানুষের পাশে সবসময় ছিলাম, বর্তমানেও আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো।ইনশাআল্লাহ।

খবরটি সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো খবর

বিজ্ঞাপন

Laksam Online Shop

first online shop in Laksam

© All rights reserved ©nakshibarta24.com
কারিগরি সহায়তায় বিডি আইটি হোম